লঞ্চ ডুবির পরে খুলে দেয়া হলো বুড়িগঙ্গা সেতু

20

ক্ষতিগ্রস্ত গার্ডারের মেরামত শেষে সীমিত পর্যায়ে যানবাহন চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু (বুড়িগঙ্গা সেতু-১)।

মঙ্গলবার রাতে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপ-প্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. আবু নাছের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত সেতুতে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ ছিল।

সদরঘাটে ডুবে যাওয়া লঞ্চ উদ্ধার করতে এসে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়ের ধাক্কায় পোস্তগোলা সেতুর মাঝামাঝি গার্ডারের কিছু অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সোমবার রাত ৮টা থেকে সেতুতে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রাখা হয়।
এতে কেরানীগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জসহ দক্ষিনাঞ্চলের হাজারো যাত্রী চরমুর্ভোগে পড়ে।


এ সময় এ রুটের গাড়ীগুলো বিকল্প পথ হিসাবে বাবুবাজার সেতু ব্যবহার করে। ফলে কেরানীগঞ্জের কদমতলী ও রাজধানীর নয়াবাজার সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।
মঙ্গলবার সকালে সড়ক ও জনপদ বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল বিশেষজ্ঞ সেতুর সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষন করেন।

ক্ষতিগ্রস্ত গার্ডারের মেরামত কাজ চলছে জানিয়ে মঙ্গলবার রাতেই সেতুটি সীমিত পর্যায়ে যানবাহন চলাচলের জন্য উম্মুক্ত করা যাবে বলে জানিয়েছিলেন সওজ এর কেরানীগঞ্জ উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী আব্দুল মোমেন।

সরেজমিন মঙ্গলবার দুপুরে গিয়ে দেখা যায়, সেতুর পাদদেশে হাসনাবাদ এলাকায় বেরিকেট দেয়া হয়েছে যাতে সেতু দিয়ে কোন গাড়ি পারাপার না হতে পারে। বেরিকেটের পাশে পুলিশ পাহারা রয়েছে। কোনো গাড়ি সেতুর পাদদেশে আসলেই পুলিশ সেটা ঘুরিয়ে দিচ্ছে।