বিএনপি কর্মী’ আখ্যা দিয়ে নি’র্যাতনের এক বছর পর মামলা

স্টাফ রিপোর্টার:
‘বিএনপি কর্মী’ আখ্যা দিয়ে ভোলার লালমোহনের মোটরসাইকেল চালক জসিমকে প্রকাশ্যে পরিবারের সামনে হাত-পা বেঁধে নি’র্যাতনের ঘটনার একবছর পর অবশেষে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্ত হাসান ডাকাতির মামলায় গ্রেফতার হওয়ার পর তার দ্বারা সেই নি’র্যাতনের ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এরপর নি’র্যাতনের শিকার জসীমের স্ত্রী বাদী হয়ে সোমবার (২৮ অক্টোবর) লালমোহন থানায় এই মামলা দায়ের করেন।

লালমোহন থানার ওসি মীর খায়রুল কবীর এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
ওসি জানান, ‘ভুক্তভোগী জসিম অন্য মামলায় জেল হাজতে থাকায় স্ত্রী জয়নব বিবি বাদী হয়ে এই মামলা দায়ের করেছেন।

এদিকে নি’র্যাতনের এই ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় আলোচনার সৃষ্টি হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার বিকালে লালমোহন থানায় সংবাদ সম্মেলন ডাকেন ইউএনও হাবিবুল হাসান রুমি এবং ওসি মীর খায়রুল কবীর।

তারা জানান, ভিডিওটি ২০১৮ সালের ২৫ জুলাইয়ের। জসিমকে নি’র্যাতনের ঘটনায় সেসময় ভয়ে কেউ থানায় কোনও অভিযোগও দায়ের করেননি। সোমবার ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়লে প্রশাসনের দৃষ্টিগোচর হয়। এর পরপরই ভুক্তভোগী জসিমের স্ত্রীকে ডেকে এনে মামলা নেওয়া হয়েছে।

আটক হাসানের বিরুদ্ধে চট্টগ্রামের পাহাড়তলী ও হালিশহর থানায় মানবপাচার, ডাকাতি ও চুরির অভিযোগে ৩টি মামলা রয়েছে বলেও জানায় পুলিশ।
এসময় জসিমের স্ত্রী জয়নব বিবি জানান, ওই সময় ভোলায় চিকিৎসাও করাতে পারেননি জসীম। পরে এক আত্মীয়ের সাহায্য নিয়ে জসিমকে ঢাকার একটি ক্লিনিকে ভর্তি করানো হয়।

৬-৭ মাস চিকিৎসার পর বাড়ি ফিরে এলে তিন বার ইয়াবা মামলায় ফাঁসানো হয় তাকে।
তার দাবি, দীর্ঘদিন পর স্বামীর নি’র্যাতনের ঘটনার ভিডিও প্রকাশ হওয়ায় আবারও আতঙ্কে রয়েছেন তারা। ইতোমধ্যে তাদের ভিটেমাটি ছাড়া করার হুমকিও দেওয়া হয়েছে।
জসিমের কন্যা সোনিয়া জানান, মাদ’ক ব্যবসায় রাজি না হওয়ায় তার বাবার ওপর এমন রোমহর্ষক নি’র্যাতন চালানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, রবিববার রাতে লালমোহনের কালমা ইউনিয়নের চিহ্নিত ইয়াবা কারবারি ও ডাকাতি মামলার আসামি হাসানকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর পরপরই ভিডিওটি ছড়িয়ে দেওয়া হয় ফেসবুকে।

ভিডিওতে দেখা গেছে, উপজেলার ডাওরী বাজারে একই ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত আব্দুল মুন্নাফের ছেলে মোটরসাইকেল চালক জসিমকে প্রকাশ্যে নি’র্যাতন করা হচ্ছে। তাকে ‘বিএনপি কর্মী ও স’ন্ত্রাসী’ আখ্যা দিয়ে নি’র্যাতন করা হয়। নি’র্যাতনকারী হাসান কালমা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মিস্ত্রিবাড়ির আবুল হোসেনের ছেলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *